আমার ফেসবুকের লেখাগুলো – My facebook Writings

পরজনমে তদেক হলে আমি দায়ী নই

আজ সকালে রুমের সামনে কয়েকজন কর্মচারী কাজ করছিল। তাদের সাথে এক জোড়া তদেক! নির্ভয়ে চরে বেড়াচ্ছে! ভিক্ষু হিসেবে আমার পশুপাখির প্রতি মন দিতে ভয় হয়। মরণকালে ঐ তদেক নিমিত্ত হিসেবে আসলেই সেরেছে। সোজা তদেককুলে জন্ম নিতে হবে।

বনবিহারে ঝাঁকে ঝাঁকে বানর। কিন্তু পূজ্য বনভান্তে সেই বানরগুলোর দিকে তাকিয়ে থাকতে মানা করতেন বলে কোথায় যেন পড়েছিলাম।

আপনারা হয়তো শুভ মাণবের কথা জানেন। তার কারণেই বুদ্ধ বিখ্যাত কর্ম বিশ্লেষণ সুত্রটি বলেছিলেন (ম.নি.৩.২৮৯)। সেটা আছে মধ্যম নিকায়ের বিভঙ্গ বর্গে। তার পিতার কাহিনী বলি। তার পিতা ছিল তোদেয়্য ব্রাহ্মণ। সে মরার পরে তার ঘরে জন্মালো কুকুরের বাচ্চা হয়ে।

কুকুরের বাচ্চাটিকে খুব পছন্দ হলো শুভের। সে সেটাকে গোসল করিয়ে আয়েশী বিছানায় ঘুম পাড়াত। কিন্তু একদিন বুদ্ধকে আসতে দেখে কুকুরটি ঘেউ ঘেউ শুরু করল। বুদ্ধ তাকে এক ধমক দিয়ে বললেন, তোদেয়্য, আগের জন্মেও ভো ভো করেছ, এখনো করছ। মরার পরে তুমি নরকে যাবে।

শুভ তখন বাড়িতে ছিল না। বাড়ি ফিরে দেখল তার সাধের কুকুরটি মনের দুঃখে রান্নাঘরের ছাইয়ের গাদায় মুখ গুঁজে পড়ে আছে। সব শুনে গরম হয়ে গেল শুভ। শ্রমণ গৌতম বেশি বাড় বেড়েছে। মুখে যা খুশি তা বলে। তার পিতার ব্রহ্মত্ব লাভ হয়েছে। কুকুর হবে কেন? দাঁড়াও, মিথ্যা বলার অপরাধে শ্রমণ গৌতমকে ধরব।

তারপর সে অনেক কাহিনী। মোবাইল গুঁতিয়ে আর এত লম্বা করে লিখতে ইচ্ছে হচ্ছে না।

তবে এখনো আপনারা শুনবেন অনেক বুড়োবুড়ি মরার পরে তাদের নাতি নাতনির ঘরে জন্মেছে। সেটা ঐ আগের জন্মের টান।

সে যাই হোক, এই ছোট্ট তদেকজোড়কে একটু ভিডিও করলাম। বেশি দেখবেন না কিন্তু। পরজনমে তদেক হলে তখন আমাকে দোষ দেয়া যাবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *