আমার ফেসবুকের লেখাগুলো – My facebook Writings

উপযুক্ত উপাসক/উপাসিকা কীভাবে হওয়া যায় (১ম পর্ব)

উপাসক কে? যে কোনো ত্রিশরণ গ্রহণকারী গৃহী হচ্ছে উপাসক। কারণ বুদ্ধ মহানাম শাক্যকে বলেছিলেন, হে মহানাম, যখন থেকে সে বুদ্ধের আশ্রয় গ্রহণ করে, ধর্মের আশ্রয় গ্রহণ করে, সঙ্ঘের আশ্রয় গ্রহণ করে, তখন থেকে সে উপাসক হয় (সংযুক্ত নিকায়.৫.১০৩৩)।

কেন তাকে উপাসক বলা হয়? ত্রিরত্নের উপাসনা করে বলেই তাকে উপাসক বলা হয়।

এভাবে ত্রিরত্নের উপাসক হলেও সে কিন্তু শীলবান হতে পারে, আবার নাও হতে পারে। উপাসক কখন শীলবান হয়? যখন সে প্রাণিহত্যা থেকে বিরত হয়, চুরি থেকে বিরত হয়, ব্যভিচার থেকে বিরত হয়, মিথ্যা বলা থেকে বিরত হয়, মদ খাওয়া থেকে বিরত হয় তখন সেই উপাসক শীলবান হয়।

উপাসক উপাসিকারা শীলবান ও সুখী সমৃদ্ধিশালী হোক এই কামনা রইল।

2 thoughts on “উপযুক্ত উপাসক/উপাসিকা কীভাবে হওয়া যায় (১ম পর্ব)

  1. আরও কিছু প্রশ্ন।
    ১। ক। রাজা অথবা দেশের প্রধান যদি বিশুদ্ধ পঞ্চশীল পালন করেন এবং রাজ্য অথবা দেশের রীতি-নীতি এবং আইন-কানুন যদি সেই অনুসারে প্রণয়ন করে শীলে অধিষ্ঠিত থাকতে চান, তাহলে রাজ্যের শীল ভঙ্গের অপরাধীদের শারীরিক ও মানসিক শাস্তি দেয়া, এবং যুদ্ধবাজ ডাকাত অথবা রাজার হাত থেকে নিজেকে এবং রাজ্যকে যদি সুরক্ষিত রাখতে চান, তাহলে শীল পরিপূর্ণভাবে পালন করে এইসব বিষয়ে ধর্মত বাস্তব নীতি কেমন হবে। খ। সন্তানের বিয়ে অথবা অন্যান্য অনুষ্ঠানে মানুষ খাওয়ানোর জন্য প্রাণী হত্যা করতে না চাইলে সেক্ষেত্রে বাজারে পাওয়া মৃত ও ফ্রীজে সংরক্ষিত মাংস ক্রয় করে অতিথি আপ্যায়ন ধর্মত হবে কিনা। অথবা সে নিজে প্রাণী হত্যা না করে বাজার এবং রান্নার সমস্ত দায়িত্ব যদি টাকা দিয়ে ক্লাব কর্তৃপক্ষের হাতে ছেড়ে দেয় এবং তারা যদি প্রাণী হত্যা করে এবং সে যদি জানে যে কর্তৃপক্ষ হত্যা করেই বাজার করবে কেননা এটিই দামের দিক দিয়ে সবচেয়ে সস্তা, তাহলে কর্তৃপক্ষ নিশ্চিতভাবেই প্রাণী হত্যা করে বাজার করবে জেনে তারপরও বাজারের ভার যদি কর্তৃপক্ষের হাতে ছেড়ে দেয় এবং ফলাফল হিসেবে তারা যদি প্রাণী হত্যা করে তাহলে সে প্রাণী হত্যার ভাগীদার হবে কিনা। কিংবা সে যদি কর্তৃপক্ষকে প্রাণী হত্যা না করেই যদি বাজার করতে বলে এবং বলার পরেও সে যখন জানে দামে সস্তা হওয়ার কারণে কর্তৃপক্ষ নিশ্চিতভাবেই হত্যা করেই বাজার করে এনে হত্যা করা হয়নি বলে চালিয়ে দিবে, সেক্ষেত্রেও সে প্রাণী হত্যার ভাগীদার হবে কিনা। অর্থাৎ বিয়ে এবং অনুষ্ঠানে শত শত হাজার হাজার মানুষকে ধর্মত মাংস খাওয়ানোর বাস্তব উপায়সমূহ কেমন হবে। গ। প্রাণী কিংবা পাখীর যেই ডিম বাজারে পাওয়া যায় অর্থাৎ মানুষ বাজার থেকে কিনে এনে যেই মুরগীর ডিম, হাঁসের ডিম, কোয়েলের ডিম, ইত্যাদি যেই ডিম কিনে এনে ভাজি অথবা সিদ্ধ করে খায় এটি প্রাণী হত্যা হবে কিনা। অর্থাৎ ধর্মত ডিম খাওয়ার নিয়ম কেমন হবে। ঘ। বৃহত্তর কল্যাণের স্বার্থে বিজ্ঞানীরা প্রাণীকে হত্যা করে অথবা প্রাণীর দেহকে বিভিন্ন ভাবে পরিবর্তন করে প্রাণীকে কষ্ট দিয়ে যেই গবেষণা করে থাকে সেটি শীলের লঙ্ঘন কিনা।
    ২। প্রাণী হত্যা না করে ডেইরি ফার্ম অর্থাৎ দুধ বিক্রির ব্যবসা করে জীবিকা নির্বাহ শীলের লঙ্ঘন কিনা কিংবা অধর্মত কিনা। কিংবা বাছুরকে দুধ খেতে না দিয়ে অথবা অল্প করে খেতে দিয়ে সমস্ত দুধ সংগ্রহ করে ফেলা শীলের লঙ্ঘন কিনা অথবা অধর্মত কিনা। যুদ্ধ করে কিংবা বল প্রয়োগ করে অন্য রাজ্যের কিংবা ব্যক্তির প্রাকৃতিক ও বস্তুগত সম্পত্তি নিজেদের দখলে আনা শীলের লঙ্ঘন কিনা অর্থাৎ অধর্মত কিনা।
    ৪।
    ৫। বিয়ার, ওয়াইন ইত্যাদি শীলের লঙ্ঘন কিনা। অর্থাৎ বৈজ্ঞানিক মানদণ্ডে কোন মাত্রার এবং কি পরিমাণের ও কি ধরনের জিনিস মুখ দিয়ে পান করা, সেবন করা এব নাক দিয়ে গ্রহণ করা শীলের লঙ্ঘন।

  2. ভান্তে, বন্দনা। পঞ্চশীল নিয়ে আপনার বিস্তারিত কোন লেখা নেই। বিনয়ে ভিক্ষুদের শীলের অঙ্গ এবং কিসে আপত্তি এবং কিসে অনাপত্তি এই বিষয়ে বিস্তারিত উল্লেখ থাকলেও পঞ্চশীল নিয়ে এরূপ বিস্তারিত কিছু নেই। সমাজ এবং বিজ্ঞানের গতিশীলতার কারণে পঞ্চশীলের অঙ্গ এবং কিসে শীল ভঙ্গ হয় ও কিসে হয় না এই বিষয়ে বিস্তারিত লেখা গৃহীদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বিস্তারিত না থাকার কারণে প্রতিটি শীল নিয়ে বর্তমানে বেশ কিছু প্রশ্নের উৎপত্তি হয়েছে যার পরিপূর্ণ উত্তর অনেকের জানা নেই। এরকম কিছু উদাহরণ – ১। ক। কোন ধাপের গর্ভাবস্থায় গর্ভপাত প্রাণী হত্যা? নিষিক্ত ডিম্বাণু? নাকি কিছুদিন অথবা কিছু সপ্তাহ কিংবা কিছু মাসের পরের গর্ভস্থ সন্তানের গর্ভপাত প্রাণী হত্যা? খ। Clinically Dead এবং Life Support চালু রাখা অথবা বন্ধ রাখার বিষয়টি। এবং নিরাময় অযোগ্য রোগীদের ক্ষেত্রে ব্যাথাহীন স্বেচ্ছা মৃত্যুর বিষ্যটি। কিংবা একজনের দেহের সাথে অন্যের মাথার মাথার প্রতিস্থাপন এবং চিত্তের বিষয়টি অর্থাৎ চিত্তই মস্তিষ্ক কিনা অথবা মস্তিষ্কের মধ্যেই চিত্তের অবস্থান কিনা অর্থাৎ চিত্ত কোন অঙ্গের আশ্রয়ে থাকে। ২। সুদ, ট্যাক্স, ভ্যাট, উন্নয়ন ইত্যদি এর নাম দিয়ে দিতে অনিচ্ছুক মানুষের ইচ্ছার বিরুদ্ধে টাকা সংগ্রহ কি চুরি ডাকাতি? ৩। ছেলে-ছেলে, মেয়ে-মেয়ে, ছেলে-হিজরা, মেয়ে-হিজরা, পিতা-কন্যা, মাতা-পুত্র, ভাই-বোন ইত্যাদি এর মধ্যে সম্পর্ক করে সংসার করা ব্যাভিচার কিনা। একত্রে সংসার করার পূর্ববর্তী প্রেম(মানসিক এবং শারীরিক) ব্যাভিচার কিনা। ধর্মমতে কোন কোন শর্ত পূরণ হলেই দম্পতির(কারা কারা দম্পতি হতে পারবে) সম্পর্ক(মানসিক এবং শারীরিক) ব্যাভিচার হবেনা। পতিতার পেশা কি ব্যভিচার কিনা। পতিতার সেবা গ্রহণ করা ব্যভিচার কিনা। একই সাথে বহু সঙ্গীর সাথে সংসার করা(ছেলে-মেয়ে উভয়ের ক্ষেত্রে) ব্যাভিচার কিনা। ৪। গোপন তথ্য ফাঁসের ফলে ঝামেলা তৈরি না হওয়ার জন্য ইচ্ছাকৃত মিথ্যা বলে তথ্য প্রকাশ না করা পাপ কিনা। গোয়েন্দাগিরি পাপ কিনা। ৫। শীতপ্রধান দেশে শরীর উষ্ণ রাখার জন্য পানীয় গ্রহণ করা এবং জীবন রক্ষার জন্য ওষুধ হিসেবে নেশা তৈরিকারী কিছু গ্রহণ করা কিংবা মাত্রার মধ্যে পানীয় গ্রহণ করা পাপ কিনা। ইত্যাদি ইত্যাদি প্রশ্ন ………।

    আপাতত একটি প্রশ্নের উত্তর যদি দিতেন-সমাজে প্রচলিত দুই প্রাপ্তবয়স্ক অবিবাহিত প্রেমিক-প্রেমিকার মধ্যকার প্রেম(মানসিক-শারীরিক) ব্যভিচার কিনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *