আমার ফেসবুকের লেখাগুলো – My facebook Writings

আমি জাদীবিরোধী নই, তবে …

ইদানিং দেখলাম অনেকেই আমার লেখাগুলো মানতে পারছেন না। আমার লেখাগুলো পড়ে তাদের বোধোদয় হয়েছে আমি নাকি জাদী বিরোধী, রামবুদ্ধ এবং অনাগত দশবুদ্ধ বিরোধী, বিদ্যাধর ও আর্যবিদ্যাধর বিরোধী। এব্যাপারে আমি আমার অবস্থান তুলে ধরব বলে ভাবছি।

প্রথমে জাদীর ব্যাপারটা নিয়ে বলি। আগে কেবল একটামাত্র পোস্টে জাদীর ব্যাপারে লিখেছিলাম। সেখানে আমি লিখেছিলাম,

“১. প্রচুর জাদীর ছবি। স্বর্ণ জাদী, রাম জাদী আর কী কী জাদী। আমার কথা হচ্ছে, জাদী বানানো ভালোই তো। অনেক পুণ্য হয়। তবে পাঅক সেয়াদ বলেন, ভিক্ষুদের টাকাপয়সা গ্রহণ নিষিদ্ধ। তাই ভিক্ষু যদি দায়কের দান করা টাকা গ্রহণ করে জাদী বা বিহার বা ভাবনাকেন্দ্র বানায়, সেখানে ভিক্ষুরা আর যেতে পারে না। সেখানে গিয়ে তারা দিনরাত ভাবনা করলেও ধ্যান লাভ করতে পারে না। ভিক্ষুরা সেরকম স্থানে মরলেও সোজা নরকে। তবে দায়কদের জন্য কোনো সমস্যা নেই।”

কথাটিতে জাদীবিরোধী কথা একবারও লিখেছি? তবুও এরা ভুল বোঝে। হয়তো শেষের কথাগুলোর কারণে ভুল বুঝেছে। কিন্তু শেষের কথাগুলো লিখেছি কারণ ভিক্ষু হিসেবে আমি বুদ্ধের নির্দেশিত বিনয়কে অনুসরণ করার পক্ষপাতী। বিনয় অনুসরণ করে জাদী হোক, বিহার হোক আমি সেটাই কামনা করি। কোনো ভিক্ষু যদি টাকা নিয়ে জাদী বানায়, সেই জাদীতে পা দিলে ভিক্ষুর পদে পদে দুক্কট অপরাধ হয়। তাই বিনয় পালনকারী ভিক্ষুদের জন্য সেটা খুবই অসুবিধার কারণ হয়। বিনয় হচ্ছে বুদ্ধশাসনের আয়ু। ভিক্ষুরা বিনয় অনুসারে চললে তবেই বুদ্ধশাসন টিকবে। বুদ্ধশাসন দীর্ঘস্থায়ী হওয়ার উদ্দেশ্যে আমি কি বলতে পারি না যে বিনয় অনুসারে জাদী হোক? আপনারাও কি চান না বুদ্ধশাসন দীর্ঘস্থায়ী হোক?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *